নবীগঞ্জে মাটির নিচে পাওয়া ৫শ’ ভরি স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে লঙ্কাকাণ্ড

উদ্ধাকৃত স্বর্ণালংকার নিয়ে জনতা ও পুলিশের মধ্যে উত্তেজনাSAMSUNG DIGITAL CAMERA

উত্তম কুমার পাল হিমেল, নবীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ নবীগঞ্জের আউশকান্দি বাজারে ৫ শ ভরি ¯¦র্ণালংকার উদ্ধারে পুলিশ গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে বাজারের জে কে জুয়েলার্সে অভিযান চালিয়ে ¯¦র্ণ চুরির সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ¯¦র্ণকার পিন্টু বণিক (৪৫) কে গ্রেফতার করে কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর থানায় নিয়ে গেছে। এ সময় পুলিশ স্বর্ণালংকার তাদের জিম্মায় নিতে চাইলে জনতা ও পুলিশের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে পুলিশ ¯¦র্নের প্যাকেটটি স্বর্ণের মালিকের কাছে ফেরত দিয়ে জনতার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এ নিয়ে নবীগঞ্জে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।
PIC NABI3পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর শহরের তৎকালীন সময়ের ¯¦র্ণ ব্যবসায়ী মৃত লাল মোহন বণীক মুক্তিযুদ্ধ চলাকালিন সময়ে রাজাকার ও পাকবাহিনীর ভয়ে তার বাড়ীতে মাটির নিচে একটি পিতলের কলসিতে ¯¦র্ণ লুকিয়ে রাখেন। দেশ স্বাধীনের পর কাউকে কিছু না বলে ওই স্বর্ণ ব্যবসায়ী মারা যান। সম্প্রতি ¯¦র্ণ ব্যবসায়ী মৃত লাল মোহন বণিক এর নাতি পিন্টু বণিকের বসত ভিটায় মাটি খুড়তে গলে শ্রমিকেরা আকষ্মিক লুকিয়ে গুপ্তধন স্বর্নের কলসীর সন্ধান পান। কিন্তু শ্রমিকেরা দিনের বেলায় কাজ বন্ধ করে রাতের কোন এক সময়ে ওই কলসী মাটির নিচ থেকে উটিয়ে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে কলসী ভর্তি ওই ¯¦র্ণ কুড়িয়ে পাওয়া শ্রমিকেরা পিন্টু বণীকের সাথে নিয়ে ভাগবাটোয়ারা করে নিয়ে যায়। ঘটনাটি জানাজানি হলে মৃত লাল মোহন বণীক এর পুত্র মদন মোহন বণীক বাদী হয়ে তার ভাতিজা পিন্টু বণীকসহ আরো ৪ জনের নাম উল্লেক করে কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এরই প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার বিকেলে বাছিতপুর থানার এস আই সজিব কুমার দত্ত ও নবীগঞ্জ থানা পুলিশের সহায়তায় আউশকান্দি বাজারের জে.কে জুয়েলার্সে অভিযান চালিয়ে কর্মচারী পিন্টু বণিককে আটক করে উদ্ধারকৃত ¯¦র্ণ চিজার লিষ্ট ছাড়াই নিয়ে যাওয়া চেষ্টা করে। এসময় উপস্থিত সাংবাদিক ও জনতা উত্তেজিত হয়ে প্রতিবাদ মূখর হয়ে উটলে এস আই সজিব কুমার দত্ত স্বর্নের পেকেটটি ফেরৎ দিয়ে উপস্থিত জনতার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। পরে ওই স্বর্নের পেকেটটি জেকে জুয়েলার্সের মালিক বাদল বণিকের জিম্মায় ফেরত দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। এ ব্যাপারে বাজিতপুর থানার এস আই সজিব কুমার দত্তের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ৫শ ভরি ¯¦র্ণ চুরির ঘটনায় মামলা হলে এই মামলার আসামীকে গ্রেফতার করতে সেখানে অভিযান চালানো হয়।

Sharing is caring!

Loading...
Open