কর্তৃপক্ষের রশি টানাটানিতে বেলাহ রানীগঞ্জ বাজার

1462041706জগন্নাথপুর সংবাদদাতা : জগন্নাথপুর উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের প্রাচীন ব্যবসা কেন্দ্র রানীগঞ্জ বাজারের প্রধান গলির ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় ময়লা-আবর্জনা আর বৃষ্টির পানি জমে খালে পরিণত হয়েছে। প্রায় ৫শ’ ফুট দৈর্ঘ্যের প্রধান গলির পুরো অংশই ময়লা পানিতে ডুবে থাকায় জনসাধারণের পাশাপাশি ব্যবসায়ীরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন।

এলজিইডি এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের রশি টানাটানিতে বৃহত্ এ ব্যবসা কেন্দ্রের প্রবেশ মুখে যাতায়াত অনুপযোগী হওয়ায় দুর্ভোগের শিকার ব্যবসায়ীরা অসহায় হয়ে পড়েছেন। কুশিয়ারা নদীর করাল গ্রাসে বাজারটির অর্ধেক অংশ নদীগর্ভে বিলীন হওয়ায় ব্যবসায়ীরা চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হলেও বাজারটির ঐতিহ্য রক্ষায় ব্যবসায়ী এবং স্থানীয়রা সৌন্দর্য বর্ধনে সরকারের সহযোগিতায় কাজ করে যাচ্ছেন। এ গলি দিয়ে জনসাধারণের পাশাপাশি শত শত শিক্ষার্থীরা ময়লা-আবর্জনায় বেষ্টিত গলির পানিতে হাঁটু পর্যন্ত ভিজে যাতায়াত করছে।
এছাড়া কুশিয়ারা নদীতে সড়ক ও জনপথ বিভাগ ফেরি সার্ভিস চালু করার পর সব ধরনের যানবাহন গলি দিয়ে যাতায়াত করায় অসংখ্য খানা-খন্দকের সৃষ্টি হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে গলিটির নাজুক দশা ও যাতায়াতে অনুপযোগী হওয়ায় স্থানীয় প্রশাসন ব্যবস্থা না নেয়ায় জনসাধারণ চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।
জগন্নাথপুর উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম জানান, বাজারের প্রধান গলিটি বর্তমানে এলজিইডি দপ্তরের আওতাধীন নয়। এদিকে রানীগঞ্জ ইউনিয়নের ভুক্তভোগী জনসাধারণ, ব্যবসায়ী ও শিক্ষার্থীরা জরুরি ভিত্তিতে রানীগঞ্জ বাজারের প্রবেশ মুখ থেকে ফেরি ঘাট পর্যন্ত গলিটির দ্রুত সংস্কার ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা চালু করে দুর্ভোগ থেকে মুক্ত করণে সংশ্লিষ্টদের প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open