প্রচণ্ড তাপদাহের মধ্যে কুয়াশার দেখা মিলল দিনাজপুরে

i8মোঃ আরিফ জাওয়াদ, দিনাজপুর:- তীব্র গরমে যখন পুড়ছে চারপাশ, তখন হঠাৎ কুয়াশার দেখা মিলল দিনাজপুরে। এ প্রচন্ড তাপদাহের মাঝে ৩০শে এপ্রিল (শনিবার) সকালে ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়ে ছিল উত্তরের এ জেলাটিতে।

স্থানীয়রা বলছেন, বৈশাখ মাসে এ ঘন কুয়াশা মানুষকে অবাক করেছে। কুয়াশা দেখে মনে হয়, শীতের আগাম জানান দিচ্ছে। কেউ কেউ বলছেন, এটি এক ধরনের দুর্যোগ বলা যায়। মিন তারতম্য মানুষের শরীরের জন্য মোটেই উপযোগী নয়।

এ দিকে শহরের উপশহর মিস্ত্রীপাড়া এলাকার ৯০ বছরের বৃদ্ধ আব্দুল আজিজ জানালেন, তিনি বৈশাখ মাসে ঝড় বৃষ্টি, অনাবৃষ্টি, খরা দেখেছেন। কিন্তু এমন ঘন কুয়াশা এ অঞ্চলে তার চোখে পড়ে নি। সবই আল্লাহর মহিমা! তিনিই (আল্লাহ) ভাল বলতে পারবেন কি কারণে আজ এই অবস্থা?

এ দিকে দিনাজপুর আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ তোফাজ্জল হোসেন জানান, দিনাজপুরে এপ্রিল মাসে একফোটাও বৃষ্টি হয়নি। অথচ আকাশে মেঘ ভেসে বেড়াচ্ছে। আবহাওয়ার পরিবর্তনের কারণে বৃষ্টিপাত হচ্ছে না। তবে মে মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। দিনাজপুরে তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৪০ ডিগ্রি পর্যন্ত উঠানামা
করছে।

কুয়াশার কারণে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাতাসে ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ জলীয়বাষ্প ভেসে বেড়ার কারণে ঘন কুয়াশা দেখা
দিয়েছিল।

এ দিকে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কুয়াশা কেটে গেছে। যার ফলে উত্তর এ জনপদটি আবার ফিরে পেয়েছে সেই প্রচণ্ড তাপদাহ।

এ দিকে এ ভ্যাপসা গরমের কারণে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে মানুষ হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। তার সঙ্গে শিশু রোগ বৃদ্ধি পেয়েছে।

প্রচণ্ড এই তাপদাহে বেশি বেশি করে পানি পান করতে হবে। রোদের মধ্যে বেশিক্ষণ চলাচল করা যাবে না। শিশুদের খুবই যত্নে  রাখতে হবে যাতে গরমের ঘাম তাদের শরীরে বসে না যায়। এছাড়া শারীরিক অসুবিধা মনে হলেই দ্রুত হাসপাতালে এসে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে, বলে জানায়, দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালের কতিপয় চিকিত্‍সক।

Sharing is caring!

Loading...
Open