কানাইঘাট ও জৈন্তাপুরের ১৫ ইউপি নির্বাচন আজ: কারা হাসবেন শেষ হাসি?

UP Election 2016ডেস্ক রিপোর্টঃ সিলেটের কানাইঘাট ও জৈন্তাপুর উপজেলার ১৫ ইউনিয়নে নির্বাচন আজ (শনিবার)। আজ এই দুই উপজেলার ভোটাররা খুঁজে নেবেন তাদের প্রতিনিধি।
শুক্রবারের মধ্যেই কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হচ্ছে, নির্বাচনি সরঞ্জাম। ভোট সুষ্ঠু করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়ার দাবি, নির্বাচন কমিশনের।
প্রস্তুত রয়েছে র‍্যাব, বিজিবি, পুলিশ, আনসার বাহিনীও। ভোটের দিন বিশৃঙ্খলা করলে, কাউকে ছাড় দেয়া না দেওয়ার হুঁশিয়ারি তাদের।
জানা যায়, শনিবার কানাইঘাট উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের নির্বাচনে মোট ১ লক্ষ ৪৫ হাজার ২৭৯ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। তার মধ্যে পুরুষ ভোটার ৭১৪৯৯ ও মহিলা ভোটার ৭৩৭৮০ জন। ৮১টি ওয়ার্ডের মোট ৮৫টি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে বলে উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে।
এদিকে সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের ১নং নিজপাট ইউনিয়ন,২নং জৈন্তাপুর ইউনিয়ন, ৩নং চারিকাটা ইউনিয়ন, ৪নং দরবস্ত ইউনিয়ন, ৫নং ফতেহপুর ইউনিয়ন ও ৬নং চিকনাগুল ইউনিয়নে নির্বাচনের সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।
দুই উপজেলায়ই বিদ্রোহীদের নিয়ে বিপাকে আছে আ’লীগ। দুই উপজেলার ১৫ ইউনিয়ন পরিষদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আছেন ১২ জন। বিদ্রোহীদের ব্যাপারে কঠোর অবস্থান থেকে ইতিমধ্যেই এই ১২ প্রার্থীকে দল থেকে বহিষ্কার করেছে আওয়ামী লীগ। তবে ভোটযুদ্ধে এসব বিদ্রোহী প্রার্থী কিছুটা হলেও আওয়ামী লীগ দলীয় ভোট টানবেন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। মাঠের প্রধান বিরোধীদল বিএনপিকে নিয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের মাথা ব্যথা না থাকলেও এসব বিদ্রোহী প্রার্থীরা কিছুটা হলেও বেকায়দায় ফেলেছেন তাদের। তবে দলীয় প্রার্থীদের বিজয়ী করতে জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা গত কয়েকদিন টানা প্রচারণায় ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন। এছাড়া স্থানীয়ভাবে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা শক্তিশালী হওয়ায় শেষ হাসি তারাই হাসবেন বলে ধারণা আ’লীগ নেতাদের।
এদিকে প্রথম ও দ্বিতীয় দফার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি বেশ জোরালোভাবে অংশ নিলেও সিলেটে তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে নীরব রয়েছে দলটি। দলের মনোনয়নপ্রাপ্ত প্রার্থীরা নিজ নিজ অবস্থান থেকে যে যেভাবে পেরেছেন নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়েছেন। জেলা বিএনপির নেতারা প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণায় তেমনভাবে অংশগ্রহণ করেননি।

Sharing is caring!

Loading...
Open