সিলেটে আখড়ার সম্পত্তি জবরদখলে হিন্দু পরিবার : রক্ষায় স্মারকলিপি

IMG_0212 copyডেস্ক রিপোর্ট: সিলেটে আখড়ার দেবোত্তর সম্পত্তি জবরদখলে নিতে মরিয়া ভাড়াটে এক হিন্দু পরিবার। এব্যাপারে সোমবার (১৮এপ্রিল) জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি দিয়েছেন একই হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন। সকালে নগরীর ভাঙ্গাটিকর এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের ১৯৪ জন স্বাক্ষরে এ স্মারকলিপি দেয়া হয়। স্বারকলিপিতে অভিযোগ করা হয় নগরীর ভাঙ্গাটিকর এলাকাস্থ শ্রী শ্রী গোপিনাথ বিশ্বম্ভর জিউর আখড়ার ভুমিতে দীর্ঘদিন ধরে ৩১টি হিন্দু পরিবার ভাড়া থাকেন। ওই ভাড়াটিয়াদের মধ্যে বিনোদ বিহারী দাম মিন্টু ও তার ভাই রঞ্জিত কুমার দাম পিন্টু । বিনোদ বিহারীরা দীর্ঘদিন ধরে আখড়ার ডকুমেন্টারী ভাড়াটিয়া। তারা বিভিন্ন সময়ে আখড়া কমিটির দেয়া লিখিত অনুমতিক্রমে বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংযোগ করে নিয়মিত রসিদের মাধ্যমে আখড়ার ভাড়া প্রদান করে আসছিলেন। অতি সম্প্রতি বিনোদ বিহারী দাম মিন্টু তার ভাড়াকরা বাসা সহ আখড়ার ১১শতক জায়গা নিজ মালিকানা বলে প্রচার করতে শুরু করেন। এর আগে বিনোদ বিহারীরা রসিদের মাধ্যমে আখড়ার ভাড়া পরিশোধ করে আসলেও গত কয়েকমাস ধরে তারা আর ভাড়া পরিশোধ করছেন না। এমনকি বিনোদরা আখড়ার দেবোত্তর সম্পত্তিকে নিজেদের ভু-সম্পত্তি দাবি করে আখড়ার নামীয় হালজরিপী রেকর্ডের বিরুদ্ধে মামলাও টুকে দিয়েছে। মামলাটি বর্তমানে শুনানীর অপেক্ষায় রয়েছে। স্মারকলিপিতে আরো অভিযোগ করা হয় বিনোদ বিহারী দামরা এখন আইন আদালতের কোন তোয়াক্কা না করে সম্পূর্ন পেশীশক্তিমূলে আখড়ার এ ভুমি জবরদখল ও আত্মসাতের চেষ্টা করছেন। স্মারকলিপিতে দাবি করা হয় সিলেট মিউনিসিপালিটি ৭৬ নং মৌজার ছাপা ২৩১৯৩ খতিয়ানের ২০৫১ দাগের ১১শতক ভুমি হাল জরিপে ২৩০৯৬ দাগে আখড়ার নামে মাঠপর্চা দেয়া হয়। এর পর থেকে ভাড়াটিয়া বিনোদ বিহারী দামরা ওই ভুমির ভাড়া প্রদান বন্ধ করে দেন এবং আখড়া নামীয় রেকর্ড তাদের নামে কেটে নেয়ার চেষ্টা করছেন। তাদের এহেন অপতৎপরতার বিরুদ্ধে রেকর্ড অফিসে পাল্টা অভিযোগ দেয়া হলে তা শুনানীর অপেক্ষায় থাকলেও বিনোদ বিহারীরা তা লংঘণ করে আখড়ার ভুমি জবরদখলে নেয়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছেন। স্মারকলিপিতে নগরীর ভাঙ্গাটিকর এলাকাস্থ শ্রী শ্রী গোপিনাথ বিশ্বম্ভর জিউর আখড়ার ভমি রক্ষায় জেলা প্রশাসকসহ দায়িত্বশীল সকল মহলের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।
স্মারকলিপিতে বিধিগত ব্যবস্থা গ্রহনের সুপারিশ করেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. সিকন্দর আলী।
স্মারকলিপি প্রদানকালে আখড়ার পক্ষে উপস্থিত ছিলেন আখড়া পরিচালনা কমিটির উপদেষ্টা নারায়ন চন্দ্র দে’ এডভোকেট কিশোর কুমার দে’,মলয় পাল ও নিতাই চাদ দে’ মনা দেব, কৃষ্ণ রবিদার,। সহসভাপতি রতনকুমার দেব,সতেন্দ্র কুমার দাশ ও বিজয় কৃষ্ণ দেব, কমিটির সাধারন সম্পাদক পিযুষ কান্তি দে’, সহ-সাধারন সম্পাদক রূপক কুমার দে’ কোষাধ্যক্ষ প্রমোদ রঞ্জন দে’ সহ-কোষাধ্যক্ষ রিপন কুমার দে’, সাংগঠনিক সম্পাদক গৌতম রায়, সহ-সাংগঠনিক পিংকু দে’। অন্যদের মধ্যে ছিলেন সঞ্জিব দে’, সৈকত, রুহিত, বিমান,নির্মল দে’, জনি পাল, দ্বীজেন দে’. সুরঞ্জিত,অমিত, সাতাই দে’, গোপাল চৌধুরী, স্বপন চৌধুরী,দ্বীপ চৌধুরী, অমর দে’ ও অয়ন দে’ প্রমূখ।
জেলা প্রশসকের পক্ষে স্মারকলিপি গ্রহন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. শহীদুল ইসলাম চৌধুরী।

Sharing is caring!

Loading...
Open