নবীগঞ্জের দূর্গাপুর হইতে হলিমপুর পর্যন্ত বেড়িবাধের দুই জায়গায় ভাঙ্গন

পানিতে তলিয়ে গেছে কয়েক হাজার হেক্টর বোরো ফসল

নবীগঞ্জ(হবিগঞ্জ)প্রতিনিধি ॥ গত কয়েকদিনের টানা ভারী বর্ষণে নবীগঞ্জ উপজেলার ৭ নং করগাঁও ইউনিয়নের অন্তরভূক্ত মাকালকান্দি হাওর প্রজেক্ট এর দূর্গাপুর হইতে হলিমপুর পর্যন্ত হবিগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক বেড়িবাধের দুই জায়গায় ভাঙ্গনের ফলে পানি প্রবেশ করে ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের কৃষকের কয়েক হাজার হেক্টর বুরো ফসল পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে করে অত্র ইউনিয়নের কৃষকরা ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়ার আশংকায় রয়েছেন।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বাধের ভাঙ্গন দিয়ে পানি প্রবেশের ফলের পানির নীচে তলিয়ে যাওয়া ধানগাছে পচন ধরেছে । নিচু এলাকার ধানের জমিগুলো সম্পূর্ন পানিতে তলিয়ে গেছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মাকালকান্দি হাওর প্রজেক্ট এলাকার দূর্গাপুর ও হলিমপুর সংলগ্ন ১২ ফুট প্রস্থ বেড়িবাধের ভাঙ্গনের কাজ মাটি দিয়ে ভরাট করার জন্য স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ছাইম উদ্দিনকে হবিগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক কয়েক লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। কিন্তু বিগত বছরে আশানুরুপ কাজ না হওয়ায় এবারও একই জায়গায় টানা ভারী বর্ষনের ফলে পানির চাপে বাধটি ভেঙ্গে যায়। হবিগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক এবারও বাধ সংস্কারের জন্য করগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ছাইম উদ্দিন কে আরও কয়েক লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। কিন্তু কাজে ব্যাপক দূর্নীতি অনিয়মের অভিযোগ করেন স্থানীয় এলাকবাসী। এলাকাবাসীর অভিযোগ ১২ ফুটের বদলে প্রায় ২ ফুট জায়গায় মাটি দিয়ে ভরাট করা হয়। বিগত কয়েকদিনের টানা বর্ষণের ফলে আবারও বাধের একাধিক জায়গায় ফাটল ধরে ভেঙ্গে যায়। তিনি তার ইউনিয়ন কর্তৃক কাজের লোক দিয়ে বাধের একপাশ গর্ত করে মাটি তুলে একটি ভাঙনের প্রায় তিন ফুট মাটি দিয়ে ভরাট করেন। এ নিয়ে অত্র ইউনিয়নের জনসাধারণের মধ্যে আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে। এলাকাবাসী মাকালকান্দি হাওর প্রজেক্ট এলাকার দূর্গাপুর ও হলিমপুর সংলগ্ন বেড়ী বাধের ভাঙন রুখতে সুইচ গেইট নির্মার্ণের জন্য হবিগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রতি জোরদাবী জানান। সুইচ গেইট হলে রক্ষা পাবে মাকালকান্দি হাওরের কয়েক হাজার হেক্টর ইরি বোরো ফসল।

Sharing is caring!

Loading...
Open