সিলেটজুড়ে কালবৈশাখীর তান্ডব : ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি, আগাম বন্যার আশঙ্কা

ডেস্ক রিপোর্টঃ সিলেটজুড়ে তান্ডব চালিয়েছে কালবৈশাখী ঝড়। গতকাল শনিবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত থেমে থেমে ঝড়ের তান্ডবে সিলেট নগরীসহ বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কালবৈশখী ঝড়ে ও ভারি বর্ষণে আগাম বন্যার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
সিলেট জেলার সিলেট সদর উপজেলা, কোম্পানীগঞ্জ, বিশ্বনাথ, বিয়ানীবাজার, গোয়াইনঘাট, জকিগঞ্জ, বালাগঞ্জ, ওসমানীনগর উপজেলায় শনিবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত থেমে থেমে তীব্র বৃষ্টি হয়েছে। আবার কখনো কখনো শিলাবৃষ্টি, আবার কখনো ঝড়ো হাওয়া প্রবাহিত হয়েছে। ঝড়ের তান্ডবে বিভিন্ন এলাকায় কাচা ঘরবাড়ির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। অনেক ঘরের টিনের চাল উড়ে গেছে। বিভিন্ন এলাকায় বড় বড় গাছগাছালি উপড়ে পড়েছে। এমনকি সিলেট নগরীর কয়েকটি স্থানে ঘরের উপর গাছ পড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এসব ঘটনায় আহত হয়েছেন দুইজন। এছাড়া সিলেট বিভাগের সকল উপজেলায় ব্যাপক ঝড়বৃষ্টি হয়েছে।
তবে সিলেট জেলার ত্রাণ ও পূনর্বাসন কর্মকর্তা মো. মফজুলের রহমান মজুমদার বলেছেন- সিলেট জেলার সিলেট সদর ও গোলাপঘঞ্জ উপজেলায় কাল বৈশাখী ঝড় বেশি হয়েছে। এতে ওই দুই উপজেলায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এছাড়াও অনেক এলাকায় বন্যা দেখা দিয়েছে। তলিয়ে গেছে ফসলাদী জমি। কাল বৈশাখী ঝড়ে ঘর বাড়ির উপর গাছ পড়ে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে সিলেট জেলার কাল বৈশাখী ঝড়ে কেমন ক্ষতি হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ক্ষয়ক্ষতির পরিমান নির্ধারণ করতে সময় লাগবে। প্রত্যেক উপজেলার ক্ষয়ক্ষতি নির্ধারণ করে আমাদের জানাবে। এরপর আমরা বলতে পারব ক্ষয়ক্ষতি কেমন হয়েছে। তিনি আরো বলেন, এভাবে বৃষ্টি ও কাল বৈশাখী ঝড় হলে বড় ধরনের বন্যার আশঙ্কা রয়েছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গতকাল শনিবার সকালে সিলেট নগরীতে কাল বৈশাখী ঝড় আঘাত আনে। এতে নগরীর নয়াসড়ক এলাকাস্থ কিশোরী মোহন উচ্চবিদ্যালয়ের দক্ষিণ পাশের একটি গাছ উপড়ে পড়ে ওই এলাকার বাসিন্দা শামীম মিয়ার ঘরের উপর। এতে ঘরের চাল ভেঙ্গে যায় ও শামীম মিয়া (৫৫) আহত হন। এছাড়া কিশোরী মোহন স্কুলে দক্ষিণ পাশের সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে যায়। একই এলাকার খ্রিষ্টান মিশনে গাছ উপড়ে সুরেশ দাস ও বেলি হাওলদারের ঘরের উপর পড়ে। এতে তাদের ঘরের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। খ্রিষ্টান মিশনে জল বিশ্বাস নান্টু (৫০) নামের এক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। নগরীর শাহী ঈদগাহ এলাকায় ৩৩ হাজার বোল্ডের বিদ্যুৎ লাইনের উপর গাছ পড়ে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়। নগরীর মিরাবাজার এলাকায় একটি বিলবোর্ড উপড়ে পড়ে যায়।
এদিকে, কাল বৈশাখী তান্ডবে কবলিত এলাকাগুলো পরিদর্শন করেছেন সিলেট সিটি করপোরেশেন কর্মকর্তা ও স্থানীয় কাউন্সিলরা। শনিবার বিকালে নগরীর নয়াসড়ক, শাহী ঈদগা, মিরাবাজারসহ বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেছেন সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব। এ সময় তার সঙ্গে সিলেট সিটি করপোরেশনের স্থানীয় কাউন্সিলররাও উপস্থিত ছিলেন।
এ ব্যাপারে সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীবের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, শনিবার নগরীতে কাল বৈশাখী ঝড় হয়েছে। এতে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় গাছ পড়েছে এবার বিভিন্ন এলাকায় ঘরের উপর থেকে টিন উড়ে গেছে। তবে নগরীতে ক্ষয়ক্ষতির কোন পরিমান নির্ধারণ করা সম্ভব হয়নি এখনও।
এদিকে কালবৈশাখী ঝড়ের তান্ডবে এসব এলাকা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সিলেট নগরীতেও চলছে বিদ্যুৎ বিভ্রাট। প্রসঙ্গত, গত কয়েক দিন আগে পুরো সিলেট বিভাগে কাল বৈশখী ঝড় হয়ছিল। এতে বোরো ধানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছিল।

Sharing is caring!

Loading...
Open