শেখ হাসিনাকে পাগল বললো নাস্তিক আসিফ মহিউদ্দিন

61810ডেস্ক রিপোর্টঃ বৃহস্পতিবার সকালে গণভবনে নববর্ষের এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ফ্যাশন দাঁড়িয়ে গেছে ধর্মের বিরুদ্ধে কিছু লিখলেই তারা মুক্তচিন্তার ধারক! কিন্তু আমি এখানে কোনও মুক্ত চিন্তা দেখি না। আমি দেখি নোংরামি।
তিনি বলেন, এত নোংরা নোংরা কথা কেন লিখবে? আমি আমার ধর্ম মানি, যাকে আমি নবি মানি তার সম্পর্কে নোংরা কথা কেউ যদি লেখে সেটা কখনোই আমাদের কাছে গ্রহণযোগ্য নয়। ঠিক তেমনি অন্য ধর্মের যারা তাদের সম্পর্কে কেউ কিছু লিখলে তাও কখনো গ্রহণযোগ্য হবে না। যারা এগুলো করে তা তাদের সম্পূর্ণ নোংরা মনের পরিচয়, বিকৃত মনের পরিচয়।
শেখ হাসিনা বলেন, এটা পুরোপুরিই তাদের চরিত্রের দোষ এবং তারা বিকৃত মানসিকতার।
প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, একজন মুসলমান হিসেবে আমি প্রতিনিয়ত আমার ধর্মকে অনুসরণ করে চলি। কাজেই সে ধর্মের বিরুদ্ধে কেউ লিখলে আমি কষ্ট পাই।
শেখ হাসিনা বলেন, সবাইকেই সংযমতা নিয়ে চলতে হবে, শালীনতা বজায় রেখে চলতে হবে। অসভ্যতা কেউ করতে পারবে না। আর তা করলে তার দায়িত্ব আমরা নেবো না।
প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্যকে কটূক্তি করে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মানসিক বিকারগ্রস্থ আখ্যা দিয়ে কুখ্যাত ইসলাম বিদ্বেষী ব্লগার আসিফ মহিউদ্দিন তার ফেসবুক পাতায় লিখেছে-
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধর্ম বিষয়ে সরাসরি বিতর্কের আহবান জানাচ্ছি। আপনি ধর্ম বিষয়ে কী জানেন এবং বোঝেন আমি জানি না, কিন্তু আপনার বক্তব্য শুনলে ধর্ম সম্পর্কে নিতান্তই জ্ঞানহীন বলে মনে হয়। যার যে বিষয়ে সেরকম জ্ঞান নেই, তার মুখ থেকে সে বিষয়ে বিশেষজ্ঞ মতামত শুনতে খুব কুৎসিত এবং নোংরা লাগে। শুনলে মানসিক বিকারগ্রস্থ বলে মনে হয়।
তাই অনুগ্রহ করে আমার সাথে বিতর্কে অবতীর্ণ হোন। দেখা যাক, আপনি ধর্ম বিষয়ে কতটা জ্ঞান রাখেন। প্রতিজ্ঞা করছি, বিতর্কে পরাজয় বরণ করলে নাস্তিকতা নিয়ে লেখা ছেড়ে দেবো। ইসলামের সমালোচনা আর কোনদিনই করবো না, সেই সাথে সহি মুসলমান হয়ে যাবো। একই সাথে, অন্য কেউ নাস্তিকতা নিয়ে লেখালেখি করলে আমি তাদের বিরুদ্ধেও লেখালেখি করবো।

Sharing is caring!

Loading...
Open