দিনাজপুরে মুক্তিপণ না পেয়ে শিশু হত্যা

1দিনাজপুর প্রতিনিধি ::দিনাজপুরের হাকিমপুরস্থ হিলিতে ৪ বছরের শিশু আবতাহিকে ৩০  লাখ টাকা মুক্তিপণ না পেয়ে হত্যা করেছে অপহরণকারীরা। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টায় ওই শিশুর বস্তাবন্দি লাশ পার্শ্ববর্তী বাড়ির একটি ছাদ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই বাড়ির আমজাদ আলী (৫০) এবং তার ছেলে সামিউল (২০)কে আটক করা হয়েছে। শিশু আবতাহি (৪) হত্যার সঙ্গে জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে হিলিতে। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দিয়েছে আসামীর বাড়ি।
হাকিমপুর মুহাড়াপাড়ার বাড়ির বারান্দায় খেলাধুলা করার সময় সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নিখোঁজ হয় আবতাহি। অনেক খোঁজাখুঁজির পর তাকে না পেয়ে সোমবার রাতে হাকিমপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি করে শিশুর বাবা প্রিন্সিপাল অধ্যাপক মামুনুর রশিদ আজাদ। মঙ্গলবার সকালে নিখোঁজ শিশুটির অভিভাবকের কাছে মুঠোফোনে  ম্যাসেজের মাধ্যমে  ৩০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। বিষয়টি থানায় অবগত করেন অপহৃত শিশুর পিতা হাকিমপুর মহিলা কলেজের প্রিন্সিপাল অধ্যাপক মামুনুর রশিদ আজাদ। পুলিশ ওই মুঠোফোনের নম্বর  ট্র্যাক করে অপহরণকারীদের স্থান চিহ্নিত করে। তবে তাৎক্ষণিক তাকে উদ্ধারে সক্ষম হয়নি। তবে এলাকাবাসীর সহায়তায় শিশু আবতাহির বস্তাবন্দি লাশ মুহাড়াপাড়াস্থ পাশের আমজাদ আলীর বাড়ির ছাদ থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। অধ্যাপক আলহাজ মামুনুর রশিদ আজাদের একমাত্র সন্তান আবতাহি। হাকিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মখলেসুর রহমান ছুটিতে রয়েছেন। তার দায়িত্বে থাকা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) এমরানুল কবির জানান, শিশুটিকে আমরা জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করতে না পারলেও লাশ উদ্ধার করেছি। অপহরণের পর ৩০  লাখ টাকা মুক্তিপণ না পেয়ে তাকে হত্যা করেছে পার্শ্ববর্তী বাড়ির লোকজন। বিষয়টি অত্যন্ত হৃদয়বিদারক। আমরা আমজাদ আলী (৫০) ও তার ছেলে সামিউল (২০)কে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি। এদিকে শিশু আবতাহি (৪) হত্যার সঙ্গে জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে রাতে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে হিলিতে। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী এই হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি করেছে। এদিকে পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের আসামী সামিউল এই হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। সে জানায়, আবতাহিদের বাড়িতে তার যাতায়াত ছিল। টাকার লোভে সে একাই এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open