জগন্নাথপুরে ঝুঁকিতে হাওররক্ষা বাঁধ, বোরো ফসল হুমকিতে

6জগন্নাথপুর প্রতিনিধি :: অব্যাহত বৃষ্টির কারনে  জগন্নাথপুরের হাওর রক্ষা বেড়িবাঁধগুলো ঝুকিপূর্ন হয়ে পড়েছে। ফলে হুমকির মুখে রয়েছে হাওরের ২৫ হাজার হেক্টর বোরো ফসল। কৃষকরা শংকিত হয়ে পড়েছেন।  গত মঙ্গলবার থেকে ঝুকিপূর্ন বাধঁগুলোতে মেরামতের কাজ শুরু হয়েছে।
কৃষকরা জানান, গত কয়েকদিনের ভারি বৃষ্টির কারণে উপজেলার সর্ববৃহৎ নলুয়ার হাওরের শালিকা ও নেতাইখালী বেড়িবাঁধে কিছু কিছু অংশে ফাটল দেখা নিয়েছে। এছাড়াও মইয়ার হাওরের ইসমাইলচক ও কুশিয়ারা বেড়িবাঁধও ঝূকিপূর্ন হয়ে পড়েছে।
ভূরাখালি গ্রামের কৃষক নেতা সিদ্দিকুর রহমান জানান,‘ অব্যাহত বৃষ্টির কারনে শালিকা ও নিতাখালী বাঁধের কিছু কিছু অংশে ফাটক দেখা দিয়েছে। এবং মাঠি নিচের দিকে ধেবে যাচ্ছে। দ্রুত সংস্কার কাজ না করা  হলে হাওরের ২৫ হাজার হেক্টর রোবো ফসল পানিতে তলিয়ে যেতে পারে। ২০১০ সালের এই বাঁধ ভেঙ্গে নলুয়ার হাওরের  পাকা ফসল পানিতে তলিয়ে যায়। এই ভয়াবহ ঘটনা আজও কৃষকরা ভুলতে পারেননি। এছাড়াও  ফসলের মাঠে বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় কৃষকরা শংকিত হয়ে পড়েছেন’।
স্থানীয় কৃষি অফিস সুত্র জানায়, এ বছর উপজেলার নলুয়া, মইয়ার, পিংলার হাওরসহ ছোটবড়সহ মোট ১৫টি হাওরে ২৫ হাজার হেক্টর বোরো ফসল চাষাবাদ করা হয়েছে।
সুনামগঞ্জের পানি উন্নয়ন বোর্ডের মাঠ কর্মকর্তা (এসও) মোসাদ্দেক আহমদ জানান, ‘ঝুকিপূর্নভাবে মেরামতের কাজ চলছে। চলতি বোরো মৌসুমে এ উপজেলায় ২২টি সিআইসি (প্রকল্প বাস্তবায়ক কমিটি) অনুকুলে ১ কোটি ২০ লাখ টাকা বরাদ্দ আসে। এছাড়া ৪টি ঠিকাদারী গ্রুপের মাধ্যমে ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়’।
জগন্নাথপুরের ইউএনও মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির মঙ্গলবার হাওর ঘুরে এ প্রতিবেদক কে জানান, ‘অব্যাহত বৃষ্টির কারনে ক্ষতিগ্রস্থ বাধগুলোতে সংস্কার কাজ চলছে। এসব বাঁধে বাঁশ ও বস্তা দিয়ে আড় দিতে বলেছি’।

Sharing is caring!

Loading...
Open