জগন্নাথপুরে ধান কাটা নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ২৫

11-4ডেস্ক রিপোর্ট :: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে ধান কাটাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ২৫ জন আহত হয়েছেন। আহতদেরকে জগন্নথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার সকাল ১০ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
আহতদের মধ্যে আলা মিয়া (৩৫) শফিক মিয়া (৪০), আতাউর রহমান (২৫), লায়েক মিয়া (২২), আমিনুল মামুন (২৬), সায়েক মিয়া (২৫), করিম উদ্দিন সাইফুল ইসলাম (২৭), ছুরুক মিয়া (৫৫), লাহিন মিয়া (৩০), আনহার মিয়া (৩১), জলাল মিয়া (৩৫), আলী নুর (২৫), নজরুল মিয়া (২২), আবুল হোসেন (৩০), বাবু মিয়া (২৯), আরশ মিয়া (৫০), খলিল মিয়া (৪০), রফিক মিয়া (২৮), জহির মিয়া (২৮), ঠাকুর মিয়া (৫৫), লিটন মিয়া (২৮), মকবুল ইসলাম ((৩৫) রয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলার সৈয়দপুর শাহারপাড়া ইউনিয়নের মোরাদাবাদ গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আবদুল ওয়াহিদের মালিধানাধীন বোরো ক্ষেত্র থেকে পাশ্ববর্তী তেঘরিয়া গ্রামের গিয়াস মিয়ার শ্রমিক ধান কেটে নিয়ে যায়। এ বিষয়টি আবদুল ওয়াহিদের কাজের লোক জামাল উদ্দিন জানতে চাইলে এ নিয়ে গিয়াস মিয়ার পক্ষের লোকজনের সাথে তার কথাকাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে জামাল উদ্দিনকে মারধোর করে তারা। পরে গিয়াস মিয়ার লোকজন সংঙ্গবদ্ধ হয়ে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মোরাদাবাদ গ্রামে হামলা চালালে এতে উভয় গ্রামের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ জড়িয়ে পড়ে। প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপি সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ২৫ জন আহত হন।
সাবেক ইউপি সদস্য আবদুল ওয়াহিদের ছেলে শাহিনুর মাহমুদ জানান, আমাদের জমিনের ধান জোর করে কেটে নিয়ে যায় গিয়াস মিয়ার লোকজন। পরে তারা অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে গ্রামে প্রবেশ করে হামলা চালিয়ে কাচাঁর মিয়া দোকান ভাংচুর করে। এছাড়াও হাফিজুর রহমানের বাড়ীর সীমাণার দেয়ালও ভেঙ্গে দিয়েছে হামলাকারীরা।
এ অভিযোগ অস্বীকার করে গিয়াস মিয়ার পক্ষের ঠাকুর মিয়া জানান, প্রতিপক্ষের লোকজন আগে আমাদের উপর হামলা করেছে।
জগন্নাথপুর থানার ওসি মুরছালিন জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়েছি। এ ব্যাপারে থানায় কোন মামলা দায়ের হয়নি।

Sharing is caring!

Loading...
Open