বিশ্বনাথ স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের সোয়া কোটি টাকা আত্মসাৎ : কর্মকর্তা আটক

1স্টাফ রিপোর্টার :: বিশ্বনাথের স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক শাখায় গ্রাহকের ১ কোটি ১৫ লাখ টাকা আত্মসাতের ঘটনায় এক ব্যাংক কর্মকর্তাকে আটক করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে পাঠানটুলায় দুদক সিলেটের বিশেষ দুটি দল অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে। তার নাম হোসেন আহমেদ (৩৫)। তিনি মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার সালাদিঘী গ্রামের মৃত আবদুল ওয়াদুদের ছেলে। তিনি সুবিদবাজার লাভলী রোডের একটি বাসায় আত্মগোপনে ছিলেন।
দুদক সিলেট কার্যালয় সূত্র জানায়, হোসেন আহমেদ বিশ^নাথ স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক শাখার ফার্স্ট অ্যাসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি ২০১৪ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৫ সালের মে মাস পর্যন্ত  ওই ব্যাংকে গ্রহাকের টাকা ভাউচারে গ্রহণ করেন। ম্যানুয়ালি টাকা গ্রহণ করলেও তিনি গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে জমা দেননি। প্রথমে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের কাছে ১৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা আত্মসাতের বিষয়টি ধরা পড়ে। আলী হোসেনকে টাকা ফেরত দিতে চাপ দিলে তিনি পালিয়ে যান। ওই সময়ে ব্যাংকের কর্মকর্তা পারভেজ আহমদ বাদি হয়ে বিশ^নাথ থানায় দুদক আইনে একটি মামলা করেন। মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পড়ে দুদক সিলেট কার্যালয়ের। তখন দুদকের দুটি বিশেষ দল তদন্তে নামে। দুদক তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পায়। অনুসন্ধান চালিয়ে দুদক প্রমাণ পায় ১৬ লাখ টাকা নয়, হোসেন আহমেদ ওই ব্যাংক থেকে মোট ১ কোটি ১৫ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন। দুদক সন্দেহ করছে, ঘটনার সঙ্গে আরও কেউ কেউ জড়িত থাকতে পারেন। দীর্ঘ তদন্তের পর দুদক হোসেন আহমেদের খোঁজে নামে। বিভিন্ন প্রযুক্তির সাহায্যে দুদকের দুটি টিম সন্ধান পায় ওই পলাতক কর্মকর্তা সুবিদবাজার লাভলী রোড ও পাঠানটুলা এলাকায় আছেন।
গতকাল দুদকের দুটি বিশেষ দল পাঠানটুলার ফুলকলির সামনে অভিযান চালিয়ে ব্যাংক কর্মকর্তা হোসেন আহমেদকে আটক করে। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক ড. মো. আবুল হাসান জানান, ব্যাংক কর্মকর্তা হোসেন আহমেদকে ১ কোটি ১৫ লাখ আত্মসাতের ঘটনায় আটক করেছে দুদক। ধারণা করা হচ্ছে, তার সঙ্গে আরও কয়েকজন জড়িত আছেন। হোসেন আহমেদকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। টাকা উদ্ধারের জন্য তথ্য নেওয়া হচ্ছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open