গোলাপগঞ্জে সাংবাদিক মাহবুব হত্যাচেষ্টা মামলার আসামী দিদার কারাগারে

Ashami sobiগোলাপগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোলাপগঞ্জ পৌরসভার সাড়ে ৫কোটি টাকা দূর্নীতির সংবাদ প্রকাশের জের ধরে জাতীয় দৈনিক আজকের পত্রিকা, দৈনিক যুগভেরী ও অনলাইন বাংলানিউজ ইউকে ডটকমের সিলেটগোলাপগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক মাহবুবুর রহমান চৌধুরীকে হত্যা চেষ্টা মামলার প্রধান আসামী দিদারুল আলমকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। দীর্ঘ দেড় মাস পলাতক থাকার পর গতকাল (রবিবার) সিলেটে নি¤œ আদালতে আসামী দিদার ও তার ভাই সায়েন আত্মসমর্পন করলে আদালত সায়েনকে জামিন দিয়ে দিদারকে কারাগারে প্রেরনের আদেশ দেন। দিদারুল আলম দিদার ও সায়েন আহমদ গোলাপগঞ্জ মর্তুজা মার্কেটের চৌকিদার ও রণকেলী নয়গ্রামের মজন আলীর ছেলে। এর আগে মামলার অপর ৪ আসামী রাজন, কামরুল, মনজুর,জেবুল আত্মসমর্পন করে জামিন লাভ করে। মামলা সূত্রে জানাযায়, সাংবাদিক মাহবুবুর রহমান চৌধুরী গত ১৫ ফেব্রুয়ারী বাড়ী থেকে বের হয়ে একটি ওয়াজ মাহফিলের উদ্দেশ্য রওয়না হয়ে গোলাপগঞ্জ চৌমুহনীতে আসা মাত্র মাদক ব্যবসায়ী দিদার তার সহযোগীদের নিয়ে মাহবুবের উপর হামলা চালায়। হামলায় মাহবুবের বাম হাতের দুটি হাড় ভেঙ্গে যায় এছাড়া ডান হাত ও পায়ে জখম হয়। হামলার সময় সাংবাদিক মাহবুবের ৪০হাজার টাকা দামের মোবাইল ফোন ও মানিব্যাগসহ নগদ প্রায় ৩ হাজার টাকা লুটে নেয় আসামীরা। দীর্ঘ ২৩ দিন সিলেট ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসা ও বাম হাতের অপারেশন শেষে গত ৯মার্চ বাড়ীতে ফেরেন। এই ঘটনায় আসামী দিদার সহ ১০ জনকে আসামী করে গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় হত্যা চেষ্টা, মোবাইল ও টাকা লুটের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন মাহবুব (মামলা নং ১৫, তারিখ ১৭.০২২০১৫)। গোলাপগঞ্জ পৌরসভার প্রায় সাড়ে ৫কোটি টাকার দূর্নীতি অনুসন্ধান করে সংবাদ প্রকাশ করায় পৌরসভার সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু সাংবাদিক মাহবুবের উপর ক্ষিপ্ত ছিলেন। এরপর একের পর এক পাপলুর অনুসারীরা সাংবাদিক মাহবুবকে হুমকি দেয় দূর্নীতির সংবাদ না করতে এর জের ধরে পাপলুর লালিতবাহীনি হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালায় বলে সাংবাদিক মাহবুব জানান।

Sharing is caring!

Loading...
Open