নববধূকে ধর্ষণের সময় যুবলীগ কর্মী আটক

Liton _Raper_Juboleague

পুলিশের হাতে আটক যুবলীগ কর্মী ধর্ষক লিটন

ডেস্ক রিপোর্টঃ বগুড়ার নন্দীগ্রামে এক যুবলীগ কর্মীর ধর্ষণের শিকার হয়েছেন প্রতিবেশী এক নববধূ। শনিবার রাতে পৌর এলাকার গুন্দইল পূর্বপাড়ায় ওই নববধূর মুখে গামছা বেঁধে ধর্ষণ করে।
পুলিশ রাতেই ভিকটিমকে উদ্ধার ও অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে। ভুক্তভোগী এ ব্যাপারে থানায় মামলা করেছেন।
পুলিশ ও এলাকাবাসীরা জানান, নন্দীগ্রাম উপজেলার গুন্দইল পূর্বপাড়া গ্রামের এক মেয়েকে তিন মাস আগে প্রতিবেশি ভ্যান চালকের সঙ্গে বিয়ে দেয়া হয়। স্কুলে যাতায়াতের পথে একই গ্রামের নিশি চন্দ্র মোহন্তের ছেলে নন্দীগ্রাম পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড যুবলীগ কর্মী বখাটে লিটন তাকে উত্ত্যক্ত করে আসছিল।
শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই ছাত্রী নববধূ প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘর থেকে বাইরে যায়। এসময় লুকিয়ে থাকা লিটন তাকে ধরে গামছা দিয়ে মুখ বেঁধে ফেলে। এরপর বাড়ির বারান্দার চৌকিতে ফেলে ধর্ষণ করে। নবধূর ধস্তাধস্তি ও তার চিৎকারে ঘরে শুয়ে থাকা অসুস্থ স্বামী বের হয়ে চিৎকার দেন। তখন আশপাশের লোকজন এসে লিটনকে হাতে নাতে আটক করেন।
লিটনের পরিবারের সদস্যরা এসে ভুক্তভোগীর পরিবারের সদস্যদের মারধর করে বিবস্ত্র লিটনকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। ধর্ষিতার স্বামী অভিযোগ করেন, ধর্ষক পরিবার প্রভাবশালী। তারা ধর্ষণের ঘটনা মীমাংসা করতে রাতেই তাদের পুরাতন বাজার এলাকায় এক ব্যক্তির অফিসে নিয়ে যায়। মীমাংসায় রাজি না হলে প্রভাবশালীরা তাদের গ্রামছাড়া ও হত্যার হুমকি দেয়।
খবর পেয়ে রাত সাড়ে ১০টার দিকে নন্দীগ্রাম থানার এসআই মনিরুল ইসলাম সেখান থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার ও অভিযুক্ত লিটনকে গ্রেফতার করেন। ওসি হাসান শামীম ইকবাল জানান, ধর্ষণের অভিযোগে লিটনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। রোববার সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।ধর্ষিতাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হবে। খবর: যুগান্তর।

Sharing is caring!

Loading...
Open